‘ডিলিট কর’, পুরনো কাসুন্দি ঘাঁটতেই রেগে লাল দীনেশ কার্তিক

২০১৯ সালের ওডিআই বিশ্বকাপে স্বপ্নভঙ্গ হয়েছিল ভারতের। সেমিফাইনালে প্রবেশ করলেও নিউ জিল্য়ান্ডের কাছে পরাস্ত হয়ে বিদায় নিতে হয়েছে। এই ম্যাচের পর আর ওডিআই ক্রিকেট খেলেননি দীনেশ কার্তিক। সেটাই ছিল মহেন্দ্র সিং ধোনিরও শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ। এই ম্য়াচ হারের পর ধোনি বিদায় নেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে। কিন্তু দীনেশ কার্তিক দলের সঙ্গে ছিলেন। তিনি জাতীয় দল থেকে দূরে সরে গেলেও পরে দারুণভাবে কামব্যাক করেন। IPL-এ ভালো পারফরম্যান্স করে তিনি জাতীয় দলে প্রত্যাবর্তন করেন। টি-২০ বিশ্বকাপ খেলেন তিনি। তারপর থেকে তিনি আর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেননি। ওডিআই অথবা টেস্টে তিনি কবে খেলবেন তা ঠিক নয়।

97602732

নিজের শেষ ওডিআই ম্যাচে ছাপ ফেলতে পারেননি দীনেশ কার্তিক। তিনি ২৫ বলে মাত্র ৬ রান করেন। তিনি ম্যাচ হেনরির বলে জিমি নিশামের হাতে ক্যাচ তুলে প্যাভিলিয়নে ফেরেন। সেই ঘটনাটি তিনি ভুলতে চান। সম্প্রতি এক সমর্থক তাঁকে এই ঘটনাটি মনে করিয়ে দেওয়ায় তিনি কড়া জবাব দিলেন সেই সমর্থককে।

97574631

কিছুদিন আগে টুইটারে দীনেশ কার্তিক একটি প্রশ্নোত্তর পর্ব শুরু করেন। যেখানে তিনি সমর্থকদের বলেন তাঁকে প্রশ্ন করতে। এই সময় এক সমর্থক তাঁর ২০১৯ সালের বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে রানের স্ক্রিনশট নিয়ে পোস্ট করেন। ক্যাপশনে লেখেন, “তোমার এই দারুণ ইনিংসের জন্য একটা শব্দ বলে যাও।” এই টুইটটি রিটুইট করে দীনেশ কার্তিক লেখেন, “এটা এক্ষুণি ডিলিট করো।” এরপাশে তিনি একটি হতাশার ইমোজি দেন।

বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে দীনেশ কার্তিক ৩.৪ ওভারে ব্যাট করতে নামেন। সেই সময় ভারতের রান ছিল ৩ উইকেটে ৫। ২৪০ রান তাড়া করতে হত ভারতকে। কেএল রাহুল, রোহিত শর্মা ও বিরাট কোহলি দ্রুত ফিরে যান। কার্তিক নেমে একটা চার মারেন। কিন্তু বল খেলেও তিনি বেশি রান করতে পারেননি। এরপর ৬ উইকেটে ভারত ৯২ রান করে। এরপর মহেন্দ্র সিং ধোনি ও রবীন্দ্র জাদেজা লড়াই শুরু করে। কিন্তু পারেনি। এই জুটি ১১৬ রান করে। জাদেজা ৭৭ রান করেন ও ধোনি করেন ৫০ রান। তবে ধোনি ফেরার পর ভারতের ফাইনালে যাওয়ার আশা শেষ হয়ে যায়। ফাইনালে মুখোমুখি হয় ইংল্যান্ড ও নিউ জিল্যান্ড। যেখানে চারের বিচারে চ্যাম্পিয়ন হয়ে যায় ইংল্যান্ড।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *